• বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:১৭ পূর্বাহ্ন

চট্টগ্রামে সেরা ক্লাব এ্যাওয়ার্ড সম্মাননা পেল হাবিলদার রজব আলী ক্লাব

News Desk
আপডেটঃ : সোমবার, ১ এপ্রিল, ২০২৪

এনামুল হক রাশেদী, চট্টগ্রাম থেকে:

আমরা চাঁটগাবাসীর পর্যালোচনায় সামাজিক, মানবিক ও গঠনমুলক কাজে সেরা ক্লাব এ্যাওয়ার্ড অর্জন করলেন হাবিলদার রজব আলী ক্লাব।

৩১ মার্চ’২৪ ইং রবিবার চট্টগ্রাম নগরীর মুরাদপুরস্থ হোটেল জামানের হল রুমে অনুষ্ঠিত আমরা চাঁটগাবাসী’র এক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলে হাবিলদার রজব আলী ক্লাবকে তার এ অর্জনের ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। চট্টগ্রামকে পুর্নাঙ্গ বানিজ্যিক রাজধানী করার দাবীতে আমরা চাটগাঁবাসী এ আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। আমরা চাঁটগাবাসীর কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক লায়ন এবিএম ইমরানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চসিকের ওয়ার্ড কমিশনার চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী।

অনুষ্ঠানে অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি নাজিম উদ্দিন শ্যামল, চাটগাঁবাসী ব্যারিস্টার আনওয়ারুল আজীম ক্লাব প্রেসিডেন্ট এড.আবুল হাসান শাহাবুদ্দিন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডা.এ কে এম ফজলুল হক সিদ্দিকী, চাটগাঁবাসী মনিরুজ্জামান ইসলামাবাদী ক্লাব সভাপতি গাজী ইসলামাবাদী, চাটগাঁবাসী আহমদ উল্লাহ মাইজভান্ডারী ক্লাব সভাপতি মফিজুর রহমান, চাটগাঁ বাসী ভাষাসৈনিক আবুল কাসেম ক্লাবের সভাপতি ওয়াসী উদ্দিন আনসারী, চাটগাঁবাসী হাবিলদার রজব আলী ক্লাব সভাপতি এড.আবুল হাসেম নিজামী, চাটগাঁবাসী হামজাখাঁ ক্লাব সভাপতি আনোয়ার হোসেন, চাটগাঁবাসী বহদ্দার ক্লাবের প্রতিনিধি রইসুর রহমান তিতু, ছালেহ আহমদ চৌধুরী ক্লাবের প্রতিনিধি মনির উদ্দিন, জোন চেয়ারপারসন (কক্সবাজার জেলা) অধ্যাপক এ,কে,এম নুরুল বশর ভুঁইয়া, কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক ইন্জিঃ নুরুল আবসার, পরিবেশ মানবাধিকার সম্পাদক এডভোকেট মাসুদুল আলম বাবলু।

ক্লাবের পক্ষে ক্রেস্ট গ্রহন করেন, হাবিলদার রজব আলি ক্লাবের সভাপতি এডঃ আবুল হোসেন নিজামী, সাধারন সম্পাদক কবি ও গণমাধ্যম কর্মি কামরুল ইসলাম। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন সহ সভাপতি অধ্যাপক একেএম নুরুল বশর ভুঁইয়া।

উল্লেখ্যঃ আমরা চাটগাঁবাসী সংগঠন ক্লাব ভিত্তিক একটি সংগঠন এতে ২৫ টি ক্লাব বিভিন্ন স্থানে সক্রিয় ভাবে কাজ করছে। যার মধ্যে সেরা ক্লাব নির্বাচিত হয়েছে হাবিলদার রজব আলী ক্লাব।

ক্রেস্ট গ্রহন করে হাবিলদার রজব আলী ক্লাবের সাধারন সম্পাদক কবি ও গণমাধ্যম কর্মি কামরুল ইসলাম সংক্ষিপ্ত প্রতিক্রিয়ায় বলেন, চট্টগ্রামকে পুর্নাঙ্গ রাজধানী হিসাবে বাস্তবায়িত হলে সারাদেশে প্রকৃত অর্থে উন্নয়ন সাধিত হবে। চট্টগ্রাম বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ একটি জেলা। এটি গুরুত্বপুর্ন বন্দর ও বাণিজ্যিক রাজধানী, চট্টগ্রামের সার্বিক উন্নয়ন করা ও প্রকৃত অর্থে একে বানিজ্যিক রাজধানী হিসাবে গড়ে তোলার মুল দায়িত্ব সরকারের। চট্টগ্রামের পয়োঃনিষ্কাশন ব্যবস্থাপনায় আধুনিকায়ন করতে হবে, কয়েক ঘন্টার বৃষ্টির পানি ও জোয়ারের পানির কারনে বর্তমানে চট্টগ্রামের যে নাজুক অবস্থা তার সঠিক সুরাহা করতে হবে।

চট্টগ্রাম শহরে আরো অনেকগুলো পানি শোধানাগার প্রকল্প নির্মাণ করতে হবে। কর্ণফুলী নদীর দূষণরোধে বিশেষ নজর দিতে হবে। চট্টগ্রামে যেহেতু ব্যাপক শিল্পায়ন হচ্ছে,কাজেই কর্ণফুলী, হালদা,সাঙ্গু সহ যে কয়টি নদী আছে সেগুলো যাতে কোনোভাবে দূষণ না হয় সে দিকে লক্ষ রাখতে হবে। মুলত কর্ণফুলী নদীর দিকে বিশেষভাবে দৃষ্টি দিতে হবে।

প্রত্যেকটি শিল্প প্রতিষ্ঠান ,তার বর্জ্য ব্যবস্থাপনার দিকে দৃষ্টি দিতে হবে। চট্টগ্রামের প্রকৃতি ও সৌন্দর্য রক্ষা যাতে হয় সে দিকে আমাদেরকে খেয়াল রাখতে হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ