• সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৩৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
মধুপুরে পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে মঙ্গল শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত কৃষি জমির টপ সয়েল কাটায় সাতকানিয়ায় মোবাইল কোর্টের অভিযানে ১ জনকে কারাদন্ড সেনবাগে সাংবাদিকদের সম্মানে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের ইফতার মাহফিল মধুপুরে খালেদা জিয়ার সু-স্বাস্হ্য ও রোগমুক্তি কামনায় দোয়া ও ইফতার মাহফিল দুঃস্থ অসহায়দের মাঝে ‘লায়ন্স ক্লাব অফ কসমোভ্যালী’র ঈদবস্ত্র বিতরন সেনবাগ পৌরবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন পৌর মেয়র ভিপি দুলাল মধুপুর কুড়ালিয়া(বাগবাড়ি)জামে মসজিদে দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত সেনবাগে দুই হাজার গরীব,দু:স্হ ও অসহায়দের মাঝে হাসান মঞ্জুর এর ঈদ উপহার বিতরণ মধুপুরে সর্বস্তরের জনগণের আয়োজনে ইফতার ও দোয়া মাহফিল নতুন ব্রীজ সিএনজি স্ট্যান্ডে র‌্যাবের জালে আঁটকা পরল ৬ চাঁদাবাজ,গডফাদাররা ধরাছোঁয়ার বাইরে

পাইকগাছার নদ-নদীতে জোয়ারের অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধি, ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় বেড়িবাঁধের বিভিন্ন এলাকা

News Desk
আপডেটঃ : শনিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

এ কে আজাদ, পাইকগাছা উপজেলা প্রতিনিধি-(খুলনা):

খুলনার পাইকগাছার নদ-নদীতে জোয়ারের অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বিভিন্ন এলাকার ওয়াপদার ভয়াবহ ভাঙ্গনকবলিত বেড়িবাঁধগুলো ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। কোন কোন এলাকায় নানা আশংকায় রীতিমত আতংকগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন সেখানকার বাসিন্দারা।

খবর পেয়ে পাইকগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ আল-আমিন ভাঙ্গনকবলিত বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন করে।

অতিরিক্ত জোয়ারের পানি বৃদ্ধির খবরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কপোতাক্ষের কোথাও বা৭ধ ভেঙ্গে আবার কোথাও নদীর পানি উপচে লবণ পানি ঢুকে পড়েছে ফসলি এলাকায়।

কপোতাক্ষের উপচে পড়া পানি উপজেলার গদাইপুর ইউনিয়নের বোয়ালিয়া জেলে পল্লী ও হরিঢালী ইউনিয়নের হরিদাসকাটির বিভিন্ন এলাকার ফসলি জমিতে প্রবেশ করছে। এতে বসতবাড়িসহ ফসলেরও ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে বলে পরিদর্শন শেষে এজলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিশ্চিত করেছেন।

শনিবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পূর্ণিমার গোনের জোয়ারে উপজেলার শিবসা ও কপোতাক্ষ নদীসহ উপজেলার বিভিন্ন নদ-নদীতে অস্বাভাবিক পানি বৃদ্ধি পায়। এতে কপোতাক্ষের গদাইপুরের বোয়ালিয়ার বাঁধ ভেঙ্গে ও উপচে পড়া পানিতে সেখানকার জেলে পল্লীর প্রায় সকল বসতি নদীর পানিতে তলিয়ে যায়। এছাড়া শিবসার উপচে পড়া পানিতে শহর রক্ষা বাঁধসহ বেড়ি বাঁধ উপচে পৌর বাজারের কাঁকড়া পট্টি, চিংড়ি বিপণন মার্কেট, মাছ বাজার, ফল বাজার ও সবজি বাজারে পানি উঠে দোকানি, হাটুরিয়াসহ পথচারীদের স্বাভাবিক চলাচল ও জীবনযাত্রা দূর্বিসহ হয়ে উঠেছে।

এছাড়া হরিঢালীর সোনাতন কাটী ও মাহমুদ কাটী, রাড়ুলী ইউনিয়নের রাড়ুলী জেলে পল্লী, লস্কর ইউনিয়নের আলমতলাসহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ওয়াপদার ভাঙ্গন কবলিত বেড়িবাঁধগুলো আরো ঝুুঁকপূর্ণ হয়ে পড়েছে। কোন এলাকার চিত্র ভয়াবহ বলেও আশংকা প্রকাশ করেছেন সেখানকার বাসিন্দারা। এছাড়া পোল্ডারের বাইরের অনেক চিংড়ী ঘের ইতোমধ্যে তলিয়ে গেছে বলে দাবি করেছেন ক্ষতিগ্রস্ত ঘের মালিকরা।

এদিকে জোয়ারের পানিতে প্লাবিত ও দূর্ভোগের খবরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহাম্মদ আল-আমিন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শিহাবউদ্দীন ফিরোজ বুলুকে সঙ্গে নিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেন। এ সময় তার সাথে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, লস্কর ইউপি চেয়ারম্যান কে.এম আরিফুজ্জামান
তুহিন, গদাইপুর ইউপি চেয়ারম্যান শেখ জিয়াদুল ইসলাম জিয়াসহ উপজেলার বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তাবৃন্দ।

এব্যাপারে ইউএনও মুহাম্মদ আল-আমিন ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার বর্ণনা দিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছেন বলে জানান তিনি। এছাড়া যেসব এলাকার টেন্ডার প্রক্রিয়া চূড়ান্ত রয়েছে সেখানে দ্রুত কাজ শুরুর জন্য সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে নির্দেশ প্রদানের পাশাপাশি স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষকে কার্যকরি পদক্ষেপ গ্রহনের জন্য নির্দেশ দেন তিনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ